মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নানা আয়োজনে সারাদেশে সরস্বতী পূজা উদযাপিত । মণ্ডপে মণ্ডপে বিদ্যাদেবীর আরাধনা ও অঞ্জলি প্রদান


প্রকাশন তারিখ : 2019-02-10

উৎসবমুখর পরিবেশে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বিদ্যার দেবী শ্রী শ্রী সরস্বতীর পূজা উদযাপিত হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসবে পঞ্চমী তিথিতে  বিদ্যা ও জ্ঞানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতীর চরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন অগণিত ভক্ত। তবে পঞ্জিকা মতে পঞ্চমী তিথি শনিবার সকাল থেকে শুরু হওয়ায় অনেক বাসাবাড়ি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এদিন পূজা অনুষ্ঠিত হয়। তাই সকাল ১০টার মধ্যেই পূজা শুরু করার বাধ্যবাধকতার মধ্য দিয়ে  বিভিন্ন বাসাবাড়ি এবং প্রতিষ্ঠানে পূজা অনুষ্ঠিত হয় ।


সনাতন ধর্মালম্বিদের মতে দেবী সরস্বতী সত্য, ন্যায় ও জ্ঞানালোকের প্রতীক। বিদ্যা, বাণী ও সুরের অধিষ্ঠাত্রী। অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করতে কল্যাণময়ী দেবীর চরণে ‘সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমললোচনে/বিশ্বরূপে বিশালক্ষী বিদ্যংদেহী নমোস্তুুতে’ এই মন্ত্র উচ্চারণ করে বিদ্যা ও জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রণতি জানান তারা। সরস্বতী পূজা উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায় বিশেষ করে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাণী অর্চনাসহ নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের মন্দির ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে পূজা ছাড়াও অন্য অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল পুষ্পাঞ্জলি প্রদান, হাতেখড়ি, প্রসাদ বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যা আরতি, আলোকসজ্জা প্রভৃতি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সকালে রাজধানী ঢাকার রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয় ও খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে সরস্বতী পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘সরস্বতী পূজায় বিপুল জনসমাগম প্রমাণ করে বাংলাদেশের মানুষ অসম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী। অসম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে বাংলাদেশের মানুষ সকল ধর্মের উৎসবে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে।’

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ হলে মহাসাড়ম্বরে বিদ্যা ও আরাধনার অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতীর পূজার আয়োজন করা হয়। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য হল এবং বিভাগও পূজার আয়োজন করে। সকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বিভিন্ন হলের পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল, বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের বিদ্যার্থীরাও পূজার আয়োজন করে।

পূজার্চনা এবং অঞ্জলি প্রদান ছাড়াও সকালে হাতে খড়ি , প্রসাদ বিতরন , সন্ধ্যায় আরতি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মুখরিত ছিল প্রতিটি মন্ডপ। ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠে সকাল সকাল পূজা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৯টায় পুস্পাঞ্জলী প্রদান এবং পরে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সরস্বতী পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে সরস্বতী পূজা উদযাপিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ব্লক সংলগ্ন বটতলায় আয়োজিত এই পূজা উৎসবে ছিল পূজা-অর্চনা, অঞ্জলি প্রদান, প্রসাদ বিতরণ, অতিথি আপ্যায়ন, আরতি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়–য়া। অফিসার্স ক্লাব পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে সকালে ক্লাব প্রাঙ্গনে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়।


Share with :

Facebook Facebook